ষষ্ঠ বর্ষ / সপ্তম সংখ্যা / ক্রমিক সংখ্যা ৫৯

বুধবার, ১১ এপ্রিল, ২০১৮

বলাকা সেন




ছিল, নেই অবকাশ


জানালার বাইরে এক টুকরো পৃথিবী ঝুলিয়ে রাখে
বাস্তবিক সান্ধ্যসুবাস আর তার ছড়ানো মোহ
না পাড়িয়ে পাপড়ির কঠিন স্তরে হাত রাখি বুঝে
নিয়ে আসে পুরনো ঘাতক প্রেমিকের সৃজন
সরিয়ে নেওয়া হাতে ফুটে থাকে লোহিত কণ্টক
এ সৃজন এ মাতাল ঢেউ তোমার মরণ আনবে দেখো!
ভাসিয়ে দেবে ব্রহ্মজ্ঞান, মুক্তজ্ঞান, পারম্পরিক ঈশ্বরত্ব
দৈবাৎ ফিরে যাও শূন্য ঘরে সান্ধ্যসুবাস নিয়ে
বৃথা পথহারা হতে চাই না এ স্বপ্নের চেয়েও মিথ্যে
অবসরের খেলাঘরে; সবুজ গাছের দীর্ঘ হলুদ পাতার অধরে;
স্পর্শের প্রাচীন অজুহাতে হারিয়েছি স্বর্ণ অবকাশ!


বাসা


একটা ভাঙা জানালা এক টুকরো নীল
দু’ চারটে ফিরে আসার পায়রা উড়ান
এর মাঝেই সকাল, মেঝের ধুলো তে গড়ায়--
রেলিঙে ঝুলতে ঝুলতে উঁচুনিচু দোল খায়...
গান আসে দূর কোনো কীর্তনের আসর হতে
বসা চলা লুটোপুটি এর কোনো সাধনা নেই
কারণ নেই সময়ের বয়ে চলার, ঝিমানোর,
অকারণ মন খারাপ মাকড়ের বাসায় আঁটা;
বাড়িঘর পরিষ্কার হয় না বহুদিন হল!



0 কমেন্টস্:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন