ষষ্ঠ বর্ষ / সপ্তম সংখ্যা / ক্রমিক সংখ্যা ৫৯

সোমবার, ৭ মে, ২০১৮

পিয়াল রায়




এবং তারপরেও

এবং তারপরেও লুকোনো অনেক কথা থাকে...

অনেকদিন অপেক্ষার পর
     আচমকা একটা সকাল আসে
        আপনি প্রিয় হয়ে ওঠেন সকলের চেয়ে
              জুড়ে থাকার ইচ্ছে প্রবল প্রবাহে জাগে

সবকিছু পেতে চাওয়ার অনন্ত মূর্খতা
                আমাকে পেয়ে বসে অযথাই
মস্তিষ্কে ভিড় করে আসে ভূতকাল

শহর শহরের কথা শোনে
       একা দূরে বনবাসী গ্রাম
               নিরালায় বোনে উলকাঁটা

এইমাত্র বুঝি পরাজয় হল
বিগত গৌরবের ভাষা

নতমুখী দুঃখী মেয়েটি অশ্রুময়
                শুনে চলে মাছেদের বিশ্রম্ভালাপ


বৃষ্টি কলঙ্কিনী

বৃষ্টির কথাই যদি বললে তবে শোন
এক যুবক একদিন বৃষ্টি দেখেছিল
খামারবাড়ি থেকে আরো কিছুটা উত্তরে

খেলাতেই সাজানো ছিল ঘুঁটি
কোথাও বিরতি ছিল না একফোঁটা
যাতে ধরা পড়তে পারে মিথ্যে গল্পটা

গল্পটা অদ্ভুত
দীর্ঘ  সিঁড়ি গেঁথে গেঁথে
হৃদয়ের ছবি একাকার
উজ্জ্বল আলোর দিনেও নিভে যাওয়া
স্বপ্নের জগৎ, খয়েরি মাটি আর ঝুলন্ত পৃথিবীর পার
সান্ধ্যকালীন হরিদ্রাভ শীতের

তুমি সেখানে যেতেই পারো
তবে মনে রেখো
বৃষ্টিকে ছুঁতে চাইলে
যুবক ওখানে পাথর হয়ে থাকে


রাধা তুমি

কত জাহাজ ফিরে গেছে
বাণিজ্য জমে নি তেমন
কত দুর্মূল্য রত্নরাজি, কত খাপখোলা তলোয়ার
হারিয়ে গেছে

কোথাও জ্বলেনি দীপ দিশেহারা নাবিকের পথে
বুকের কাছাকাছি পানি হয়ে ওঠেনি ইমন

শুধু তুমি ভোলোনি এই স্বপ্নের মায়া
সাজিয়েছ বৃন্দাবন, গোঠের মোহনবাঁশি
বুকে চেপে এগিয়েছ এতদূর
বাঁকা হাসি তার, অরূপনন্দন

আজও তাই বংশীধ্বনি শোনে কত না রাখাল
মেঘাম্বর রসরাত্মায় ভিজে যায় কতশত যুবতীর প্রাণ

দেবালয় ভেঙে, অন্ধকার ভেঙে...







0 কমেন্টস্:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন